সুধু অর্থ দিলেই নীল টিক পাওয়া যাবে না টুইটারে

টুইটার, বাংলাদেশে তুলনামুলক কম ব্যাবহার হলেরও পশ্চিম, এবং ইউরোপে এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির ব্যাপক কদর আছে। মাইক্রবøগিং সাইট হিসেবে পরীচিত টুইটারের বর্তমান মালিক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা াবেক বিশ্ব ধনী ইলন মাস্ক। ইলন মাস্ক ২০২২ সালের নম্ভেবরে ৪৪ বিলিয়ন ডলার দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার ক্রয় করেন। ইলন মাস্ক টুইটার ক্রয় করার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার আলোচনা সমালচার শির্ষে অবস্থান করছে। ইলন মাস্কের নানান সংস্খারমুখি পদক্ষেপের কারণে অতি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার বেশ সমালচিত হয়েছে। ইলন মাস্ক টুইটারের সাবেক মালিক পক্ষ দ¦ারা নিষিদ্ধ ব্যাক্তিদের এ্যাকাউন্ট পুনরায় ফিরিয়ে দেবার ঘোষণা দিয়েছে। বিতর্কিত সন্তব্য প্রকাশ করার কারণে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের টুইটার এ্যাকাউন্ট ব্যান করে ত্বতকালীন টুইটার কর্তিপক্ষ। ইলন মাস্ক টুইটার কেনার পর একটি পরিপ চালু করেন যাতে টুইটার ব্যাবহারকারীদের মতামত জানতে চাওয়া হয়, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ব্যানকৃত টুইটার এ্যাকাউন্টি ফিরিয়ে দেবার পক্ষে এবং বিপক্ষে সকল টুইটার ব্যাবহারকারীদের মতামত জানতে চাওয়া হয়।

জরিপের জল অবশ্য ট্রাম্পের পক্ষেই গেছে। বেশিরভাগ টুইটার ব্যাবহারকারী ট্রাম্পের এ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেবার পক্ষে রায় দেন। তারপর ট্রাম্পের টুইটার এ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেয় বর্তমান ইলন মাস্ক মালিকানাধীন টুইটার কর্তিপক্থ। এসকল কারণ ছাড়াও অর্থের বিনিময়ে নীল টিক সেবা চালু করেছিল টুইার এ সেবা চালুর পর টুইটারে ভুয়া এ্যাকাউন্ট খোলার হিড়িক পরে যায়। অবস্থার এতটাই অবনতি হয় য়ে মৃত ব্যাক্তিদের নামেও ভেরিফাইড টুইটার সকৃয় দেখা যায় এবং সে সকল এ্যাকাউন্ট থেকে টুইট প্রকাশ হতে থাকে। এবং বিভিন্য ভুয়া ভেরিফাইড টুইটার এ্যাকাউন্ট থেকে বিভিন্য নিতিবাচ প্রচারণা করতে দেখা যায়। এছাড়াও টুইটারের আয় কমে যাবার কারণে ইলন মাস্ক টুইটারের ব্যাবস্থাপনা ব্যায় কমানোর লক্ষে টুইটার থেকে ব্যাপক হারে কর্মি ছাটাইয়ের নির্দেশ দেন। এসকল কারণে টুইটার বিশ্বজুড়ে ব্যাপক ভাবে সমালচিত হয়। টুইটারে ভুয়া এ্যাকাউন্ট খোলার ফলে টুইটারে প্রকাশিত তেেথ্যর প্রতি মানুষের আস্থা কমে যায় ফলে টুইটার নিয়মিত ব্যাবহারকারী হারাতে থাকে। এ অবস্থা কাটিয়ে ্ওঠার জন্য ইলন মাস্ক বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করেন। এর মধ্যে টাকার বিনিময়ে নীল টিক প্রদান সেবার ওপর নুতন কিছু নিয়ম জারি করেছে টুইটার কর্তিপক্ষ। এখন থেকে সুধু টাকা পরিশোধ করলেই নিল টিক সেবা চালু হবে না। নিীল টিক সেবা প্রদানের আঘে ব্যাবহারকারীর প্রফাইলের তথ্য যাচাই করা বে এবং টুইটার কর্তিপক্ষ যদি সন্তষ্ট হয় তাহলেই নীল টিক যুক্ত করে দেয়া হবে। নীল টিক পাবার জন্য ব্যাবহারকারীর একটি পূনাঙ্গ প্রফাইল থাকতে হবে, এবং প্রফাইলে ছবি সংযুক্ত থাকতে হবে। কোন ব্যাবহারকারী যদি টুইটার এ্যাকাউন্টের ইউজারনেম, নাম, কিংবা ছবি পরিবর্তন করে তাহলে নীল টিক চিহ্নটি সাময়িক ভাবে মুফে যাবে। তবে একজন প্রিমিয়াম ব্যাবহারকারী যেসকল সুবিধা পেয়ে থাকে সে সকল সুবিধাই সেই ব্যাবহারকারী পাবেন, যেমন কম বিজ্ঞাপন দেখাবে, অগ্রধিকারের ভিত্তিতে টুইট দেখতে পারবেন ইত্যাদি। নীল টিক যুক্ত এ্যাকাউন্টের তথ্য পরিবর্তন করা হলে সাময়িক ভাবে নীল টিক হিহ্ন মুছে দেয়া হবে এবং উক্ত ব্যাবহারকারীর টুইটার এ্যাকাউন্টের পরিবর্তিত তথ্য যাচাই করে সকল কিছু ঠিক থাকলে আবারও নীল টিক চিহ্ন যুক্ত করে দেয়া বলে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ভিত্তিক গণমাধ্যম প্রথম আলো। প্রিয় পাঠক আপনি কি মনে করেন। ইলন মাস্ক এসকল পদক্ষেপ গ্রহন করে টুইটারের হারানো ভাবমুর্তি পূণরায় ফিরিয়ে আনতে পারবেন? এ বিষয়ে আপনার অতি মুল্যবান মতামত মন্তব্য করে অবশ্যই জানাবেন ধন্যবাদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *